Photography
উদ্যোক্তারা ঋণ পাবেন যেভাবে
Posted on 2020-05-26 09:15:05

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উদ্যোক্তা হিসেবে নারী উদ্যোক্তারা সফল ভূমিকা রাখছেন। তাদের মাধ্যমে দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প চাঙ্গা হচ্ছে, তেমনি বাড়ছে কর্মসংস্থানের হারও। এর মাধ্যমে বিশেষ করে গ্রামীণ অর্থনীতিতে বাড়তি শক্তির জোগান বাড়ছে। এসব বিবেচনায় নিয়ে নারী উদ্যোক্তাদের বিকাশে সব ধরনের সহায়তা করার জন্য সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে সিদ্ধান্ত হয়েছে। এর আলোকে বাংলাদেশ ব্যাংক বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। একই সঙ্গে বাণিজ্যিক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকেও প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে বলেছে।

২০১০ সালে প্রণীত ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের (এসএমই) ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচি বিষয়ে একটি সার্কুলার জারি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ওই সার্কুলারে নারী উদ্যোক্তাদের সহজ শর্তে ঋণ দিতে বিশেষ কর্মসূচি গ্রহণ করে। এর আওতায় ঋণের সুদের হার কমিয়ে ১০ শতাংশ বেঁধে দেয়। পরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিশেষ তহবিল ব্যবহারের ক্ষেত্রে এ হার আরও ১ শতাংশ কমিয়ে ৯ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়।

নারী উদ্যোক্তাদের ঋণ নিতে হলে যে কোনো ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের শাখায় যোগাযোগ করতে হবে, বিশেষ করে যেসব শাখা থেকে নারী উদ্যোক্তাদের ঋণ দেয়া হয়। ওইসব শাখায় একটি নারী উদ্যোক্তা সহায়তা ডেস্ক রয়েছে। ওই ডেস্কে একজন কর্মী নিয়োগ করা আছে। যিনি নারী উদ্যোক্তাদের ঋণ নেয়ার ব্যাপারে সহায়তা করবেন।

নারী উদ্যোক্তাদের সহায়তা করতে বাংলাদেশ ব্যাংকে একটি নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন ইউনিট গঠন করা হয়েছে। এখান থেকে নারীদের ঋণ দেয়ার বিষয়টি তদারকি করা হচ্ছে। এছাড়া প্রতিটি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানেই এই ইউনিট গঠনের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এই ইউনিট থেকে নারী উদ্যোক্তাদের সব ধরনের সেবা প্রদানের বিষয়টি তাদরকি করা হয়। এর মধ্যে ক্ষুদ্র ও মাঝারি খাতে ঋণ প্রদান, প্রমোশনাল কার্যক্রমের মাধ্যমে নারী উদ্যোক্তা সৃষ্টি, নারী উদ্যোক্তাদের খুঁজে বের করে তাদের ঋণ প্রদান করা। ওই ডেস্কে সম্ভব হলে একজন নারী কর্মকর্তা নিয়োগ দিতে হবে।

উদ্যোক্তারা সর্বনিম্ন ৫০ হাজার টাকা ঋণ নিতে পারবেন। এ ধরনের ঋণ নিলে তাদের ক্ষুদ্র শিল্পের আওতায় বিবেচনা করতে হবে। নারী উদ্যোক্তাদের অনেকে ছোট। এ কারণে গ্রুপভিত্তিক ঋণ দেয়ার নির্দেশনাও রয়েছে। অর্থাৎ একজন উদ্যোক্তা ৫০ হাজার টাকা নিতে না পারলে কয়েকজন মিলে নিতে পারবেন। এক্ষেত্রে ঋণগ্রহীতাদের ক্ষুদ্রশিল্পের আওতায় সুবিধা দেয়া হবে। এজন্য ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে তাদের এসএমই ঋণের একটি অংশ নারী উদ্যোক্তাদের মধ্যে বিতরণ করতে হবে।

ঋণ নেয়ার জন্য উদ্যোক্তাদের ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্ট শাখায় যোগাযোগ করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ আবেদন করতে হবে।


সূত্রঃ যুগান্তর নিউজ